ঢাকার নবাবগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনা সাজিয়ে বাবা-ছেলে ও বারি-ঘড়ে হামলা; ভাঙ্গচুর

120

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার বালেংগা গ্রামে তুচ্ছ ঘটনা সাজিয়ে বাড়ি ঘড়ে হামলা চালিয়ে বাবা ছেলেকে পিটিয়ে আহত ও বারি ঘড়ে হামলা করে ভাঙ্গচুর করা হয়েছে। ৪ জুলাই শনিবার সকাল সারে ১০টায় হামলার শিকার হয়েছে বাবা আলা উদ্দিন সহ দুই সহোদর সেখ সফি উদ্দিন (৩৭) ও শেখ আরবালি(৩০)।

পূর্ব শক্রতার জের ধরে একই গ্রামের ৮ নং ইউপি সদস্য রমিজ মেম্বার ও তার ভাই রজ্জবের নেতৃত্বে রনি,মিজান, মিন্টু ও দেলদুয়ার সহ অজ্ঞাত পরিচয়ের ২০/২৫ জন সন্ত্রাসী দেশী অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে শফি উদ্দিন ও আরবালি কে মারাত্মক আহত করে এবং ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে আলমারি -সু কেছ ভাংচুর করে স্বর্ন ও নগদ টাকা নিয়ে যায়। এমনটিই জানিয়েছেন আহত ভুক্তভূগি পরিবার। 

আহত শফি উদ্দিন ও তার ভাই আরবালি মুমুর্ষ অবস্থায় দোহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি রয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আহতদের বাড়ির বড় ভাই আছর উদ্দিন ও ৯ বছরের শিশু,নারী ও ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধ আলা উদ্দিন কেও আহত করে তবে তারা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ই অবস্থান করছে। আহতর বোন জানান, আমার ভাতিজা সকালে ঘাস কাটতে গেলে চর থাপ্পর দেয়। পরে আমরা জানতে চাইলে আমাদের উপরে তেরে আসে এবং হামলা চালায় মেম্বারের ভাই ভাতিজারা। আহতরা আরো জানান, এ সব কোন বিষয় না। জয়কৃষ্টপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার রমিজ মেম্বার সহ ভাই সৈজদ্দিন,  রজ্জবরা একটি  জমি দখল করে খেত। সেই জমি আমার ভাই দখল মুক্ত করে যাদের জমি তাদের ফিরিয়ে দেই। সেখান থেকেই আমাদের পরিবারের উপর কোপ ছিল। সেটা না তুলে ঘাস কাটার উছিলা দিয়ে আমদের বারি ঘড়ে হামলা চালিয়ে ভঙ্গচুর করে। জয়কৃষ্টপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার রমিজ মেম্বার সহ ভাই সৈজদ্দিন,  রজ্জব মান্নানের ছেলে বাবু, ইসমাইলের ছেলে দেলুয়ার, আনোয়ার, মিন্টু, লুতফর এর ছেলে রনিরা হামলা চালায়। এবং  হুমকি দেয় সুস্থ্য হয়ে ফিরে আয় আবার ও মার খাবি। 

এ ব্যাপারে নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এর মুঠোফোন ব্যস্ত থাকায় কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার মৃত্যুঞ্জয়ী কীর্তুনিয়া জয় এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান -বিষয়টি শুনেছি উভয় পক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।